করোনায় একদিনে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১০৮ জনের মৃত্যু

দেশে প্রাণঘাতী মহামারি করোনা ভাইরাসে ২৪ ঘণ্টায় আরো ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট প্রাণহানি হলো ২৮ হাজার ১৬ জন।

এর আগে গতকাল ৫ জনের মৃত্যু হয়। যা নিয়ে করোনা শনাক্তের ২১ মাসের মাথায় কোভিডে মৃত্যুর মোট সংখ্যা ২৮ হাজার ছাড়িয়ে যায়।

এছাড়া ৮৪৮ টি ল্যাবে ২৪ ঘণ্টায় ২০ হাজার ৫৪৯ জনের নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ২৭৭ জনের। ফলে একদিনের বিবেচনায় মৃত্যু ও শনাক্ত বেড়েছে। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১ দশমিক ৩৫ শতাংশ।

মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৫ লাখ ৭৮ হাজার ২৮৮ জনে। সুস্থ হয়েছেন আরো ২৯৬ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ ১৫ লাখ ৪৩ হাজার ২০৪ জন।

এর আগে গত ১৪ সেপ্টেম্বর দেশে করোনায় মৃত্যুর মোট সংখ্যা ২৭ হাজারের মাইলফলক পেরিয়ে গিয়েছিল। এর ৮২ দিনের মাথায় মৃতের তালিকায় যুক্ত হল আরো এক হাজার নাম। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনার সংক্রমণ দেখা দেয়। কয়েক মাসের মধ্যে এই ভাইরাস বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গত বছরের ৮ মার্চ।

ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়ায় চলতি বছর জুন থেকে রোগীর সংখ্যা হু-হু করে বাড়তে থাকে। ২৮ জুলাই একদিনে সর্বোচ্চ ১৬ হাজার ২৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

গত ৩১ অগাস্ট তা ১৫ লাখ পেরিয়ে যায়। এর আগে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ব্যাপক বিস্তারের মধ্যে ২৮ জুলাই দেশে রেকর্ড ১৬ হাজার ২৩০ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়।

প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর গত বছরের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ২৯ আগস্ট তা ২৬ হাজার ছাড়িয়ে যায়। তার আগে ৫ অগাস্ট ও ১০ অগাস্ট ২৬৪ জন করে মৃত্যুর খবর আসে, যা মহামারীর মধ্যে এক দিনের সর্বোচ্চ সংখ্যা।