আব্দুল হান্নান, ক্রাইম রিপোর্টার সিলেট

চুনারুঘাট উপজেলার রাজাপুর গ্রামের মৃত আঃ ওয়াহাবের পুত্র ও দেওরগাছ ইউপি সদস্য লাল মিয়ার চুরি হওয়া মোটরসাইকেলটি শনিবার (২৬ মার্চ) রাতে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ব্রাহ্মণগাও থেকে উদ্ধার করেছে চুনারুঘাট থানা পুলিশ।

সাইকেলটি চুরির সাথে জড়িত মোটরসাইকেল চোর চক্রের ২ সদস্য বাপ্পি উসমান (২৪) ও কাওছার মিয়ার (৩৫) দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে সাইকেলটি উদ্ধার করেন চুনারুঘাট থানার ওসি তদন্ত চম্পক দাম এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ।
এর আগে গত বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) বিকাল ৪টায় উপজেলার কাচুয়া বাজারে টিসিবি পণ্য বন্টনকালে বাজারের ব্যবসায়ী রফিক মিয়ার দোকানের সামন থেকে লাল মিয়া মেম্বারের হিরো গ্লামার ১২৫ সিসি মোটরসাইকেলটি চুরি হয়ে যায়।


বিষয়ে তিনি চুনারুঘাট উপজেলার কালিচুং গ্রামের মৃত ছিদ্দিক আলীর পুত্র কাওছার মিয়াকে অভিযুক্ত করে চুনারুঘাট থানায় মামলা দায়ের করেন।
পুলিশ কাউছারকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে কাউছার ঘটনার সাথে তার সম্পৃক্ততা ও রাজাপুর গ্রামের মৃত চেরাগ আলীর পুত্র ফারুক মিয়া এবং নোয়াবাদ গ্রামের আনোয়ার মিয়ার পুত্র বাপ্পি উসমানকে এর জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে।
পুলিশ বাপ্পিকেও আটক করে। ফারুক গা ঢাকা দেয়।
পরে পুলিশ বাপ্পিকে সাথে নিয়ে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ব্রাহ্মণপুর থেকে মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করে।
লাল মিয়া বাদী হয়ে তিন জনকে আসামি করে চুনারুঘাট থানায় মামলা করেন।

বাপ্পি উসমান এর বিরুদ্ধে গাছ চুরি, মাদক মামলা সহ নানান অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে।
ফারুক এর বিরুদ্ধে একাধিক মাদক মামলা রয়েছে।
সে বিভিন্ন বাহিনীর সোর্স পরিচয় দিয়ে এসব অপকর্ম করে বেড়াচ্ছে।

বাপ্পি ও কাউছারকে আদালতে পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চুনারুঘাট থানার ওসি মোঃ আলী আশরাফ।
বাপ্পি আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দী দিয়েছে।

পলাতক ফারুককে খুঁজছে পুলিশ।