আসমা, সানজিদা, তামান্না, নূরে জান্নাত কুবি সাংবাদিকতা বিভাগের প্রথম গ্র্যাজুয়েট প্রথম চারজনই ছাত্রী, প্রথম আসমা ইসলাম (৩.৭১), দ্বিতীয় সানজিদা আক্তার (৩.৬৬), তৃতীয় তামান্না আক্তার (৩.৬১) ও চতুর্থ হয়েছেন নূরে জান্নাত বিনতে নাহার (৩.৫৯)।
banner

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রথম গ্র্যাজুয়েট হলেন প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। ২৩ জুন (বুধবার) অনার্স (সম্মান) চূড়ান্ত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার মাধ্যমে বিভাগ থেকে প্রথম অনার্স ডিগ্রি অর্জন করলেন তাঁরা। ফলাফলের দিক থেকে এগিয়ে আছেন ছাত্রীরা।

এর মধ্যে প্রথম আসমা ইসলাম (৩.৭১), দ্বিতীয় সানজিদা আক্তার (৩.৬৬), তৃতীয় তামান্না আক্তার (৩.৬১) ও চতুর্থ হয়েছেন নূরে জান্নাত বিনতে নাহার (৩.৫৯)।

আনন্দিত ও উচ্ছ্বসিত এই শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে তাদের এই বিভাগে জার্নি এবং তাদের আবেগ-অনুভূতি, ভালোবাসা শেয়ার করেছেন এমসিজে নিউজের সাথে।

প্রথম স্থান অধিকার করা আসমা ইসলাম বলেন, যেখানে ভালোবাসা আর আন্তরিকতা থাকে সেখানে শত প্রতিকূলতাও হার মানে। শিক্ষার্থীবান্ধব কিছু উদার শিক্ষকদের হাতে গড়া এ সাংবাদিকতা বিভাগ।

এখানে শ্রেণিকক্ষ ছিল না, ল্যাব ছিল না, সেমিনার ছিল না, স্যারদের বসার মতো নিজস্ব কোনো কক্ষও ছিল না, কিন্তু তাদের ভালোবাসা আর আন্তরিকতাটা ছিল। আমার কাছে আমার সাংবাদিকতা বিভাগ আর পরিবার আলাদা কিছু না। এ পরিবার থেকে স্নাতক সম্মানে সম্মানিত হওয়ার আনন্দ অসামান্য।

বিভাগের শিক্ষকদের ছাত্রী হিসেবে পরিচয় দিতে পারাটা বেশ গর্বের বলে মনে করেন দ্বিতীয় স্থান অধিকার করা সানজিদা আক্তার।

তিনি বলেন, সবচেয়ে ভালো লাগার বিষয় হচ্ছে, কুবি যতদিন থাকবে ততদিন আমরা বিভাগের প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থী পরিচয় নিয়ে থাকবো। আর আমিও সবসময় বলতে পারবো যে আমি দ্বিতীয় অবস্থানে ছিলাম।

সৃষ্টিকর্তা ও শিক্ষকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা পোষণ করে তৃতীয় স্থান অধিকারী তামান্না আক্তার বলেন, প্রথম ব্যাচ হিসেবে আমাদের অনেক কিছুরই ঘাটতি ছিলো। তবে শিক্ষকদের আন্তরিকতায় আমরা মানসম্মত ফলাফল নিয়ে বের হতে পেরেছি। কৃতজ্ঞতা তাদের প্রতি। তাছাড়া বন্ধুবান্ধব ও অন্যান্যদের প্রতিও ভালোবাসা জানান তিনি।

ছোটবেলা থেকেই শুনেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের জীবন হচ্ছে জীবনের সেরা সময়। চোখে হাজারো রঙ্গিন স্বপ্ন, নতুন জায়গা, নতুন নতুন মানুষকে নিয়ে নানান জল্পনা কল্পনাকে সঙ্গী করে বিভাগের প্রথম ব্যাচ হিসেবে লালমাটির ক্যাম্পাসে পা রেখে স্নাতকে চতুর্থ স্থানও অধিকার করেছেন নূরে জান্নাত বিনতে নাহার।

এ নিয়ে তিনি বলেন, বিভাগের প্রথম ব্যাচ হওয়ায় আমাদের যেসব অপূর্ণতা ছিলো, শিক্ষকদের আন্তরিকতা, সহযোগিতা ও সহপাঠীদের ভালোবাসা সেসব অপূর্ণতাকে পূরণ করে দিয়েছে। সময়ের সাথে সাথে আমরা বড় হয়েছি, সেই সাথে বড় হয়েছে বিভাগও। কখন যে সবাই আপন হয়ে গেছি তা বুঝতেই পারিনি।

উল্লেখ্য, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের যাত্রা হয়েছিল ২০১৬ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি। বর্তমানে বিভাগটিতে স্নাতকোত্তর সহ ৫ টি ব্যাচ অধ্যয়নরত আছে।

banner