সানাউল্লাহ, দোহা(কাতার)প্রতিনিধি।

কাতারে যে কোনো এক্সচেঞ্জ কোম্পানির মাধ্যমে বর্তমানে যে কোনো প্রবাসী একবারে সর্বেোচ্চ তিন হাজার ৫০০ রিয়াল নিজের দেশে পাঠাতে পারবেন। এর চেয়ে বেশি একদিনে পাঠানো যাবে না। আইডির পেশা ও বেতনের নির্ধারিত পরিমাণ অনুসারে কেউ কেউ পরদিন অাবারও এই পরিমাণ অর্থ পাঠাতে পারবেন।

কাতারের বিভিন্ন এক্সচেঞ্জ সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

ঈদের ছুটির পর ৩১ মে রবিবার থেকে কাতারে খোলা রয়েছে সব এক্সচেঞ্জ প্রতিষ্ঠান। সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত খোলা থাকছে এসব প্রতিষ্ঠান। এর ফলে প্রবাসীরা নিজেদের সুবিধাজনক সময়ে দেশে পরিবারের জন্য অর্থ পাঠানোর সুযোগ পাচ্ছেন।

তবে করোনাভাইরাস রোধে স্বাস্থ্যবিধি অনুসারে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মাস্ক ব্যবহার করে এসব এক্সচেঞ্জে হাজির হতে হয়।

আজ ২ জুন মঙ্গলবার কাতারে কয়েকটি এক্সচেঞ্জ হাউসে রিয়ালের বিনিময়ে বাংলাদেশি মুদ্রার হার নিচে তুলে ধরা হচ্ছে- (তবে দিনের যেকোনো সময়ে এই রেট পরিবর্তন হতে পারে)

মানিগ্রাম-এর মাধ্যমে সরাসরি বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর রেট ১ কাতারি রিয়াল = ২৩ টাকা ২৫ পয়সা।

আলদার এক্সচেঞ্জ হাউসের মাধ্যমে কোনো ব্যাংক একাউন্টে টাকা পাঠালে ১ কাতারি রিয়াল = ২২ টাকা ৮০ পয়সা।

গালফ এক্সচেঞ্জ-এর মাধ্যমে বাংলাদেশে টাকা পাঠালে পাওয়া যাবে ১ কাতারি রিয়াল = ২৩ টাকা ২২ পয়সা।

আলজামান এক্সচেঞ্জ- এর মাধ্যমে বাংলাদেশে টাকা পাঠালে পাওয়া যাবে ১ কাতারি রিয়াল = ২৩ টাকা ২১ পয়সা।

কাতার প্রবাসীরা মোবাইলে উরিদু মানি অ্যাপ নামিয়ে সেটির মাধ্যমেও বাংলাদেশে সরাসরি বা ব্যাংক একাউন্টে অথবা বিকাশে টাকা পাঠাতে পারেন। সেক্ষেত্রে আগ্রহী ব্যক্তির কাছে অবশ্যই উরিদু মোবাইল নাম্বার থাকতে হবে।

এছাড়া কমার্শিয়াল ব্যাংকের মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করেও প্রবাসীরা যে কোনো দেশে রিয়াল পাঠাতে পারবেন।

মন্তব্য করুন

আপনার মতামত লিখুন
Please enter your name here