banner


স্বপন আহাম্মেদ চুনারুঘাটঃ- হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে এই প্রথমবারের মত রাতের আধারে হাজার,হাজার নারী-পুরুষ ক্রিড়ামোদী দর্শকের উপস্থিতিতে”স্বচ্ছতা গোল্ডকাপ ফুটসাল ফুটবল ফাইনাল খেলাটি অনুষ্টিত হয়েছে।

এমন খেলার আয়োজনের বিষয়টি ছিলো ক্রিড়াপ্রেমিক দর্শকের মধ্যে”টক অব দ্যা বানিয়াচং”


এমন ব্যাতিক্রম এক ফুটবল ফাইনাল খেলার আয়োজনের খবরটি হবিগঞ্জ তথা বিশ্বের সবচেয়ে বড় গ্রাম বানিয়াচংবাসী সহ বিভিন্ন উপজেলায় খবর প্রচার হয় আয়োজকদের কাছ থেকে।
তার পর শুরু হয় খেলাটি উপভোগ করার আগ পর্যন্ত ক্রিয়ামোদী প্রেমিকদের মধ্যে ছিলো আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে।
এক কথায় এই ফাইনাল খেলার বিষয়টি”টক অব দ্যা বানিয়াচং”পরিনত হয়।
রাতের এই অন্ধকারে খেলাটি উপভোগ করতে বিভিন্ন গ্রাম ও অন্যান্য উপজেলা থেকে ফুটবল প্রেমিক শিশু বাচ্ছা থেকে শুরু করে বয়স্ক দর্শকগনদেরও আসতে দেখা যায় খেলার মাঠ পাঙ্গনে এবং বিভিন্ন সাইডে আশপাশে অবস্হান নিতে দেখা যায়।
এমনকি অনেক রাজনৈতিক নেতা-কর্মী,মিডিয়া কর্মী ও বিভিন্ন খাট বাজারের ছোট,বড় ব্যাবসায়ীদের উপস্থিতি ছিলো লক্ষনীয়।
নতুন ধরনের এই ফুটসাল খেলা দেখার জন্য উন্মুখ দর্শকদের আগমন আড়ালে,আবডালে হলেও ছিল চোখে পড়ার মতোই।
এমনকি মাঠের পাশে মহারত্ন পাড়া বিদ্যালয়ের দোতলার ছাদে মহিলা দর্শক পর্যন্ত দেখা যায়।
এই জমজমাট ফাইনাল খেলাটি রাতের আধারে কৃত্রিম আলোতে খেলাটি পরিচালনা করা হয়।
এই ফুটবল খেলার সংক্ষিপ্ত সংস্করনের নাম হচ্ছে ফুটসাল।আমাদের দেশে এখনও ফুটসাল খেলার নাম ও নিয়ম-কানুন অনেক খেলুয়ারও দর্শকেরই ছিলো অজানা।
এই খেলাটিও ফুটবল দিয়েই খেলতে হয়। তবে এই খেলার নিয়মটি ছিল সম্পূর্ন ব্যাতিক্রম।
উভয় দলে খেলোয়ার ৫ জন করে মোট ১০ জন অংশ গ্রহন করেন।এমনকি খেলার নির্ধারিত সময় ছিলো ৫০ মিনিট এবং মাঠের পরিসরও ছিলো ক্ষুদ্রতম।
বানিয়াচংয়ের রাজবাড়ী‘র সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন স্বচ্ছতা‘র ব্যানারে ও দেওয়ান আহমদ জুলকারনাইন (আহমদ রাজা)রাজা‘র পৃষ্টপোষকতায়,আলী ফুটবল একাডেমীর উদ্যোগে স্বচ্ছতা গোল্ডকাপ ফুটসাল ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলাটি অনুষ্টিত হয়েছে।
বানিয়াচং উপজেলার ২নং উত্তর পশ্চিম ইউনিয়নের জুয়েল মাঠে রাত ৮টায় উক্ত ফাইনাল খেলাটি অনুষ্টিত হয়।
এতে প্রধান অতিথি হিসেবে খেলা উপভোগ ও পুরস্কার বিতরন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদ রানা।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা ক্রীড়াসংস্থার সাধারন সম্পাদক আমীর হোসেন মাষ্টার।
বানিয়াচং থানা ইনচার্জ মোঃএমরান হোসেন, বীরমুক্তিযোদ্ধা হায়দারুজ্জামান খান ধন মিয়া,প্রধান পৃষ্টপোষক দেওয়ান আহমদ জুলকারনাইন (আহমদ রাজা)পাচ মহল্লার সরদার হাজী মোঃআব্দুর রশীদ,লন্ডন প্রবাসী মোঃ সোহেল মিয়া।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্মসাধারন সম্পাদক এনামূল হোসেন খান বাহার,সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান মিয়া,ক্রীড়া ব্যাক্তিত্ব মাসুকুর রহমান মাসুক,ব্যাবসায়ী সমিতির সাবেক সাধারন সম্পাদক শাহজাহান মিয়া,জেলা তাতীলীগ নেতা পারভেজ আলম, প্রেসক্লাব সভাপতি মোশাহেদ মিয়া,সাধারন সম্পাদক খলিলুর রহমান,সাংবাদিক আব্দুল হক মামুন, সর্দার মনিরুজ্জামান লেচু,সাবেক খেলোয়ার বাবুল মিয়া,এডঃ আসাদুজ্জামান খান তুহিন,ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল হালিম সোহেল,উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক সাইম হাসান পুলক,
যুবলীগ নেতা জসিম উদ্দিন,সাবেক খেলোয়ার আব্দুস সালাম লস্কর, কাউছার আহমেদ শিহাব,সাংবাদিক পলাশ,অপুু,সুজনসহ আরও অনেকেই।
খেলাটি পরিচালনা করেন রেফারী ফারুক আহমেদ।
লীগ পদ্ধতির টুর্নামেন্টে মোট ১৬টি দল অংশগ্রহন করে।
ফাইনাল খেলায় অংশগ্রহন করে চানপাড়া ও তামজিদ ফ্যাশন।
খেলার ফলাফল চানপাড়া ২ গোল করে বিজয়ী হয় এবং তামজিদ ফ্যাশন ১ গোল করে রানার্সআপ হয়।
হবিগঞ্জ বানিয়াচং উপজেলায় এই প্রথম এমন খেলাটি উপভোগ করে”বড় বাজারের এক বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী ও ক্রিড়া প্রেমিক রাসেল হোসাইন তার মতামত প্রকাশ করে বলেন,প্রথমেই এই খেলার পৃষ্ঠপোষক এবং আয়োজককারী ও পরিচালনা কারীগনদেরকে শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ জানান।
সে বলে এমন সময়ে অধিকাংশ যুবকরা বিভিন্ন ধরনের অপরাধ মূলক কর্মকান্ডে নিজেকে ব্যাস্ত রাখে কিন্তু এই সময়ে খেলাটি হওয়ায় অনেকেই আবার অপরাধ জনিত কাজে যোগদান না করে খেলাধুলার প্রতি অগ্রসর হয়ে খেলা উপভোগ করবে এবং তারা নিজেরাও অংশ গ্রহন করবে।
তার মতে মাদক ও অন্যান্য অপরাধ মূলক কর্মকান্ড থেকে যুব সমাজকে বাঁচাতে হলে,সচেতন মহলের ও সচেতন সমাজের নেতৃবৃন্দকে বিভিন্ন ধরনের খেলা ধুলার আয়োজন করতে হবে এমনকি তিনি জোরদাবীও জানান।
আর না হলে বর্তমান প্রজন্মের যুব সমাজকে দেশের অবস্থার কথা চিন্তা করে এমন কথাটি আক্ষেপ করে বলেন। আর না হলে এসব মাদক ও বিভিন্ন অপরাধ মূলক কর্মকান্ড থেকে তাদেরকে ফেরানো সম্ভব নয় বলেও জানান।
উল্লেখ্য,২রা জানুয়ারি ঐ ব্যাবসায়ী ক্রিড়া প্রেমিক রাসেল হোসাইন” এডভোকেট আব্দুল মজিদ খান এমপি’র নামে একটি বেটবেন্টন টুর্নামেন্টের আয়োজন করেন।
উক্ত খেলায় ৪০টি দল অংশ গ্রহন করে এবং উল্লেখিত তারিখে”মা-কমিনিউসেন্টার মাঠে রাতের আধারে হাজার হাজার দর্শকের উপস্থিতিতে ফাইনাল খেলাটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল।
নিশাদ,আলীম জুটি বিজয়ী হয়ে প্রথম পুরস্কার গ্রহন করে এবং উজ্জ্বল,ইমন জুটি রানার্সআপ পুরস্কার গ্রহন করে।

banner