banner

সূত্রাপুর প্রতিনিধি :

রাজধানীর সূত্রাপুরে কিশোর গ্যাংয়ের বিরোধে অনন্ত নামে (১৭) কিশোর নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় সাজু আহামেদ (১৪) নামে আরও একজন আহত হয়েছে। সোমবার শবেবরাতের রাত ১১টার দিকে পুরনো ঢাকার সূত্রাপুরের ফরাশগঞ্জ ঘাট এলাকায় ঘটনাটি ঘটে।

বন্ধুরা তাদেরকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসলে অনন্তকে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আব্দুল খান। তিনি বলেন, অনন্তের লাশ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। সাজু চিকিৎসাধীন রয়েছে। বিষয়টি সূত্রাপুর থানাকে অবিহিত করা হয়েছে।

উদ্ধার কারী সরোয়ার জানান, অনন্তসহ আমরা ৮-৯ জন নামাজ পড়ে ঘোরাফেরা করে বাসার ফিরছিলাম। পথে ফরাশগঞ্জ ঘাট এলাকায় অনন্ত দেখতে পায় তাদের এলাকার ছোট ভাই সাজুকে মারধর করছে ওই এলাকার ফেরদৌসসহ ১০-১২ জন। অনন্ত সেখানে প্রতিবাদ করতে এগিয়ে যায়। কোনো কিছু বুঝে উঠার আগেই ফেরদৌস অনন্তের পেটে বেশ কয়েকটি ছুরিকাঘাত করে আমরা এগিয়ে যেতে যেতে তারা পালিয়ে যায়। পরে আমরা তাদেরকে হাসপাতালে নিয়ে আসি। এখানে চিকিৎসক অনন্তকে মৃত বলে জানান।

তিনি জানান, সাজু চিকিৎসাধীন রয়েছে। তবে কী নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ হয়েছিল তা আমি জানতে পারেনি। অনন্তের বাসা ধোলাইখাল লালচান এলাকায়।

আহত সাজুর বরাত দিয়ে আরেকজন জানিয়েছেন, সন্ত্রাসী মুন্না, আকাশের আশ্রয়ে জুনিয়র ফেরদৌস ও আলামিনের সঙ্গে সাজুর ঝগড়া হয়। এ ঘটনার জের ধরে তার ওপর হামলা করে।

জানা গেছে, নিহত অনন্ত স্থানীয় জুবলী স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্র ছিল। দুই ভাইয়ের মধ্যে অনন্ত ছিল ছোট।

banner