banner

পিরোজপুরে বিনিয়োগের মাধ্যমে সুদবিহীন উচ্চ মুনাফার প্রলোভনে মানুষকে আকৃষ্ট করে ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ মামলায় মাল্টিপারপাস কম্পানি এহসান গ্রুপের চেয়ারম্যান মুফতি রাগীব আহসান ও তার তিন ভাইয়ের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে শুনানি শেষে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক ম. মহিউদ্দিন আসামিদের রিমান্ডের আবেদন মঞ্জুর করেন।

শুনানিতে বাদীপক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট এম ডি নুরুল ইসলাম সরদার শাহজাহানসহ জেলা আইনজীবী সমিতির আইনজীবীরা। অন্যদিকে আসামি পক্ষের কোনো আইনজীবী আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।

জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য ও বাদীপক্ষের আইনজীবী এম ডি নুরুল ইসলাম সরদার শাহজাহান জানান, সারা দেশে প্রতারণা করে রাগীবের পরিবার ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছে। এ কারণে ক্ষতিগ্রস্তদের পক্ষে আইনি সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন পিরোজপুরের আইনজীবীরা। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক মনিরুল ইসলাম সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ম. মহিউদ্দিনের আদালতে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করেন।

ভুক্তভোগীর অভিযোগের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে র‌্যাব সদর দপ্তরের গোয়েন্দা শাখা ও র‌্যাব-১০-এর একটি দল রাজধানীর শাহবাগ থানার তোপখানা রোড এলাকায় অভিযান চালিয়ে রাগীব আহসান (৪১) ও তার সহযোগী আবুল বাশার খানকে (৩৭) গ্রেপ্তার করে। এর আগে বিকেলে সদর উপজেলার খলিশাখালী এলাকা থেকে মাওলানা মাহমুদুল হাসান ও মো. খাইরুল বাশারকে পিরোজপুর সদর থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

উল্লেখ্য, ধর্মীয় আবেগ-অনুভূতিকে কাজে লাগিয়ে এমএলএম কম্পানির ফাঁদ তৈরি করে ধর্মপ্রাণ সাধারণ মুসলমান, ধর্মীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যুক্ত ব্যক্তি, ইমাম শ্রেণি ও অন্যদের টার্গেট করে ১৭ হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন এহসান গ্রুপের চেয়ারম্যান রাগীব আহসান।

banner